তারিখঃ ২৩শে জুন, ২০২২ খ্রিস্টাব্দ

আড়াইহাজারে এবার থানার পাশের এলাকা থেকে দুই লুট

স্টাফ রিপোর্টার:
আড়াইহাজারে ছনপাড়া এলাকার “বøু” এগ্রো ফার্ম” নামে একটি খামার থেকে গরু লুটের ঘটনার রেশ কাটতে না কাটেই এবার থানার মাত্র কয়েক গজের দূরুত্বে এবার এক কৃষকের দুইটি গরু লুট করা হয়েছে। এতে কৃষকের প্রায় আড়াই লাখ টাকার ক্ষতি হয়েছে বলে অভিযোগ করা হয়েছে। এ ঘটনার পর এলাকায় গরু’র খামারিদের মধ্যে ব্যাপক আতংক দেখা দিয়েছে। শনিবার রাতের যেকোন সময় স্থানীয় লাসারদী এলাকায় আবুল কাসেমের বাড়িতে এই ঘটনা ঘটেছে। ঘটনাস্থল থানা থেকে কিছু অদূরে। প্রসঙ্গত. এর আগে ১৩ মে ভোর সাড়ে ৪টার দিকে স্থানীয় ছনপাড়া এলাকায় অবস্থিত “বøু” এগ্রো ফার্ম” নামে একটি খামার থেকে প্রায় ২১ লাখ টাকা মূল্যের ১১টি গরু লুটের ঘটনা ঘটে। এ ঘটনায় থানায় ১৪ মে রাতে একটি মামলা হলেও পুলিশ এখনো পর্যন্ত কাউকে আটক করতে পারেনি। এদিকে খামারের মালিক সৈয়দ মোরসালিন নামে এক ব্যক্তি মামলাটি করেন। তিনি জানান, তার খামারে ২৭টি ষাড় গরু, ৩টি গাভী, ২টি বকনা ও একটি ষাড় বাছুর লালন-পালন করে আসছিলেন। উক্ত খামার দেখাশোনা করতো সিরাজগঞ্জ জেলার শাহাদাৎপুর থানাধীন পুতাইদাহ এলাকার জোবানি খাঁয়ের ছেলে রহিম, নরসিংদী জেলার মাধবদী থানাধীন কান্দাইল এলাকার মহব্বত আলীর ছেলে রুবেল ও একই এলাকার কাজী শফিকুর রহমানের ছেলে কাজী শাহাদাৎসহ পাঁচ ব্যক্তি। শনিবার ভোরে খামারের টিনের বেড়া কেটে ১২-১৩ জনের একদল ডাকাত ভেতরে প্রবেশ করে। পরে তারা একটি পিকআপভ্যানে তুলে ৭টি শাহীওয়াল লাল, একটি শাহীওয়াল কালো, একটি সাদা, একটি গাভী লাল, একটি দেশীয় প্রজাতির সাদা গরু লুট করে নিয়ে যায়। তিনি আরও বলেন, লুট হওয়া গরু’র বাজার মূল্য প্রায় ২১ লাখ টাকা হতে পারে। তিনি বলেন, আমি প্রথমে ‘৯৯৯’-এ ফোন দেই। পরে আড়াইহাজার থানার পুলিশ খামারে আসেন। তার অভিযোগ ছিল, ডাকাতির এই ঘটনার খামারের কতিপয় কর্মচারিরা জড়িত রয়েছে। আড়াইহাজার থানার ভারপ্রাপ্ত কর্মকর্তা (ওসি) আজিজুল হক হাওলাদার বলেন, গরু’র চুরির বিষয়টি আমি শুনেছি। তবে গরু উদ্ধারে পুলিশের অভিযান চলছে।

পোষ্টটি শেয়ার করুনঃ

About Author

আড়াইহাজারের সময়

আড়াইহাজারের সময় হলো সবচেয়ে দ্রুত জনপ্রিয় হওয়া ওয়েব পোর্টাল। আড়াইহাজারের মানুষের সবচেয়ে বিশ্বস্ত পত্রিকা। আড়াইজারের সময়ের সাথেই থাকুন। আমরা সর্বদা সত্য প্রকাশে অবিচল।

Comments are closed.